Saturday, June 25, 2022

ময়মনসিংহে হাই-টেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন 

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট 

ঢাকা: ময়মনসিংহে হাই-টেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। বুধবার (২২ জুন) ময়মনসিংহের কিসমত রহমতপুরে এই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী (আইসিটি) জুনাইদ আহমেদ পলক।

হাই-টেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে ময়মনসিংহ সদরের টাউন হল মোড়ে অ্যাডভোকেট তারেক স্মৃতি অডিটোরিয়ামে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ময়মনসিংহে হাই-টেক পার্ক স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা আর আমদানিকারক দেশ থাকতে রাজি নই। আমাদের এখন রফতানিকারক দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে হবে। দেশে এখন বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ বিরাজ করছে। পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের মাধ্যমে কাজ করার সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে।’

তিনি বলেন, ‘ওয়ালটন-সনির‌্যাংগস-সামস্যাং-নোকিয়াসহ বিভিন্ন দেশি বিদেশি প্রতিষ্ঠান এখন হাই-টেক পার্কগুলোতে ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন, রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার (এসি), হোম অ্যান্ড কিচেন অ্যাপ্লায়েন্সেস, এমনকি অত্যাধুনিক ইলেক্ট্রনিক ভেইকল তৈরি করতে যাচ্ছে।’ আইসিটি বিভাগের এসব চমৎকার উদ্যোগ বাস্তবায়নে যেকোনো ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘এই হাই-টেক পার্ক ময়মনসিংহবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর এক অনন্য উপহার। আমরা আশা করছি খুব দ্রুত এর নির্মাণ কাজ শেষ হয়ে যাবে এবং দুই বছরের মধ্যে এখানে আমরা কার্যক্রম শুরু করব। এখান থেকে এক হাজার তরুণ-তরুণী প্রশিক্ষণ নিয়ে তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবে। এই তরুণ-তরুণীরা ময়মনসিংহ এর প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসেই ইউরোপ আমেরিকার বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করে ডলার আয় করবে। নিজেরা উদ্যোক্তা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের তরুণরা আর জব সিকার নয়, জব ক্রিয়েটর হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করবে। ডলার আয়ের জন্য এখন আর বিদেশে পাড়ি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। এটাই শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল।’ বাংলাদেশ এখন দক্ষিণ এশিয়ার উদীয়মান অর্থনৈতিক শক্তি; কাজেই বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান বা অন্য কোনো ব্যর্থ রাষ্ট্রের সঙ্গে তুলনার সুযোগ নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু, আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (গ্রেড-১) ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ ও প্রকল্প পরিচালক এ কে  এ এম ফজলুল হক। অনু্ষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য বেগম মনিরা সুলতানা ও ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল, আইসিটি বিভাগ ও বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় প্রশাসনের প্রতিনিধিরা।

উল্লেখ্য, প্রায় ১৫৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ময়মনসিংহ সদরের কিসমত রহমতপুরে প্রায় সাত একর জমিতে এই হাই-টেক পার্ক স্থাপনের কাজ শুরু হলো। এই পার্কে প্রায় তিন হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এছাড়া প্রকল্পের আওতায় এক হাজার জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

সারাবাংলা/ইএইচটি/পিটিএম

এ রকম আরো কিছু খবর

Most Popular